শেখ হাসিনার জন্ম না হলে বাঙালির অর্থনৈতিক মুক্তির স্বপ্ন অধরাই থেকে যেতো- বিডিইউ উপাচার্য


বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল ইউনিভার্সিটি,বাংলাদেশএর মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মুনাজ আহমেদ নূর বলেছেন বঙ্গবন্ধু কন্য জননেত্রী শেখ হাসিনার জন্ম না হলে বাংলাদেশের পক্ষে কখনোই উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখা সম্ভব হতো না। বিনির্মাণ করা সম্ভব হতো না বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা। বাঙালির স্বপ্ন অধরাই থেকে যেতো। তিনি বলেন, শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতৃত্বের কল্যাণে আজ আমরা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণ করতে পারছি এবং স্বপ্ন দেখছি ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশে পৌঁছানোর। বঙ্গবন্ধু কন্য জননেত্রী শেখ হাসিনার৭৪তম জন্মদিন উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল ইউনিভার্সিটি,বাংলাদেশ আয়োজিত আলোচনা সভা, দোয়া মাহফিল ও বৃক্ষরোপণ কর্মসূচিতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মাননীয় উপাচার্য এসব কথা বলেন। সোমবার (২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০)দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাস গাজীপুরের কালিয়াকৈরে এই আলোচনা সভা,দোয়া মাহফিল ও বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত)মোঃ আশরাফ উদ্দিন,সিনিয়র সিস্টেম এ্যানালিস্ট মুহাম্মদ শাহীনূল কবীরসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক,কর্মকর্তা- কর্মচারীবৃন্দউপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মাননীয় উপাচার্য আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু ৭ মার্চের ভাষণে বলেছিলেন “এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম,এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম”। তিনি সংগ্রাম করে আমাদের স্বাধীনতা এনে দিয়েছেন। কিন্তু মুক্তির সংগ্রাম শুরু করে বাস্তবায়ন করেযেতে পারেন নি, স্বাধীনতাবিরোধী চক্র তা বাস্তবায়ন করতে দেয় নি। বাস্তবায়নের আগেই ১৯৭৫সালের ১৫ই আগস্ট ঘাতকরা বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করে। বঙ্গবন্ধুর সেই কাঙ্খিত মুক্তির সংগ্রাম বাস্তবায়ন করছেন তাঁর সুযোগ্য কন্যা পরপর তিনবারসহ চতুর্থ বারের প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা। তাঁর সুযোগ্য নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ ডিজিটাল বাংলাদেশে পরিণত হয়েছে। পরে মাননীয় উপাচার্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে একটি ফলজ বৃক্ষ রোপন করেন এবং বিশ্ববিদ্যালয়কর্তৃক আয়োজিত দোয়া মাহফিলে অংশগ্রহণ করেন। এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ও বিভাগীয় প্রধানগন একটি করে বৃক্ষ রোপন করেন। মাননীয় উপাচার্য বঙ্গবন্ধু কন্যার ৭৪তমশুভ জন্মদিনে তাঁকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানান এবং সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করেন।